বিশ্বে ইতিহাস গড়তে যাচ্ছেন দুই নারী নির্মাতা

 

সংবাদ জমিন ডেস্ক ঃঃ
অস্কারের আয়োজক অ্যাকাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের তথ্যানুযায়ী, এবার রেকর্ডসংখ্যক ৭৬ জন নারী স্থান করে নিয়েছেন মনোনয়ন তালিকায়। তাদের মধ্যে আলোটা দুই নারী নির্মাতার দিকেই। তারা হলেন চীনের ক্লোয়ি জাও (নোম্যাডল্যান্ড) এবং ব্রিটিশ নির্মাতা এমারেল্ড ফেনেল (প্রমিসিং ইয়াং ওম্যান)। অস্কারের আগের ৯২ বছরের ইতিহাসে কেবল পাঁচজন নারী নির্মাতা সেরা পরিচালক শাখায় মনোনয়ন পেয়েছেন। আর এবার এক আসরেই সেরা পরিচালকের দৌড়ে আছে দুই নারীর নাম। এমন ঘটনা এবারই প্রথম। তাই এমারেল্ড ফেনেল এতই আনন্দিত যে, তার কান্না থামছে না! টুইটারে তিনি নিজেই এই অনুভূতি জানিয়েছেন। এমারেল্ড ফেনেলের হাত ধরে প্রথমবার কোনো ব্রিটিশ নারী নির্মাতার নাম লেখা হলো অস্কারের সেরা পরিচালক শাখার মনোনয়নে। অথচ ‘প্রমিসিং ইয়াং ওম্যান’ তার প্রথম ছবি! টিভি সিরিজ ‘কল দ্য মিডওয়াইফ এবং দ্য ক্রাউন-এ অভিনয়ের সুবাদে তিনি দর্শকদের কাছে পরিচিত। সেরা পরিচালক ছাড়াও সেরা চলচ্চিত্র এবং সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য শাখার মনোনয়ন এসেছে তার ঝুলিতে।

আমেরিকায় স্থায়ীভাবে থাকা ক্লোয়ি জাও সব মিলিয়ে চারটি শাখায় জন্য মনোনীত হয়েছেন। সেরা চলচ্চিত্র ও সেরা পরিচালক ছাড়াও তার নাম আছে সেরা অ্যাডাপ্টেড চিত্রনাট্য ও সেরা সম্পাদনা শাখায়। তিনি যদি সবকটি জেতেন তাহলে আমেরিকান অ্যানিমেশন শিল্পের পথিকৃৎ ওয়াল্ট ডিজনির রেকর্ডে ভাগ বসাতে পারবেন। তিনিই একমাত্র অস্কারের এক আসরে চারটি পুরস্কার জিতেছিলেন। হতাশার কথা হলো, অ্যাকাডেমি কখনো নারীকেন্দ্রিক ছবিকে সেরা চলচ্চিত্র শাখায় স্বীকৃতি দেয়নি। এ কারণে গোল্ডেন গ্লোবস ও ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস জেতা ‘নোম্যাডল্যান্ড’ কারও কারও কাছে ফেবারিট হলেও বাজি ধরা যাচ্ছে না। সেরা পরিচালক শাখায় দুই নারীর প্রতিদ্বন্দ্বী টমাস ভিন্টারবার্গ (অ্যানাদার রাউন্ড), ডেভিড ফিঞ্চার (ম্যাঙ্ক) এবং লি আইজ্যাক চাঙ (মিনারি)। অস্কারের সেরা পরিচালক শাখাটি যেন পুরুষদের দুর্গ! ক্যাথরিন বিগেলো একমাত্র নারী নির্মাতা যিনি পুরস্কারটি জিতেছেন। ২০১০ সালে ‘দ্য হার্ট লকার’ তাকে এই সম্মান এনে দেয়।