মসজিদের ভিতর প্রেমিকার স্বামীকে ছয় টুকরা করলো ইমাম

 

সংবাদ জমিন, অনলাইন ডেস্ক ঃঃ
৪ বছরের শিশু আরিয়ান দক্ষিণখানের সরদার বাড়ির বড় মসজিদ মক্তবে পড়তো। আরিয়ানের বাবাও ওই মক্তব থেকে কুরআন শিক্ষা নিয়েছেন। তার বাবা আজহার এবং তার মা তাকে মাঝে মাঝে মসজিদে রেখে আসতেন। ওই মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুর রহমানের সঙ্গে তাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ক গড়ে উঠে। সম্পর্ক থেকে তাদের বাড়িতে যাতায়াত ছিল মাওলানা আব্দুর রহমানের। মাওলানা আব্দুর রহমানের সঙ্গে আজহারের স্ত্রী পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে উঠে বলে সন্দেহ করতেন আজহার। এতে তাদের মাঝে সম্পর্কের ফাটল ধরে। এ নিয়ে গত ১৯ শে মে রাতে ভিকটিম আজহার ইমামকে তার স্ত্রীর দিকে কুনজর না দিতে শাসানোর জন্য মসজিদে গিয়েছিলেন।

ইমাম তখন মসজিদের ভেতর তার শয়ন কক্ষে শুয়ে ছিলেন। এ সময় তাদের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। হাতাহাতিরও ঘটনা ঘটে। তখন ক্ষিপ্ত হয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে কোরবানির গরু জবাইয়ের ছুরি দিয়ে আজহারের গলায় আঘাত করেন ইমাম মাওলানা আব্দুর রহমান। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর আজহারের মরদেহ ছয় টুকরা করে মসজিদের সেপটিক ট্যাংকে লুকিয়ে ফেলেন তিনি।

ইমাম আব্দুর রহমান পুরো কাজটি করেন দক্ষিণখানের সরদার বাড়ি জামে মসজিদে তার শয়ন কক্ষে। সেফটিক ট্যাংকি থেকে দুর্গন্ধ ছড়ালে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আজহারের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে ইমাম আব্দুর রহমানকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১। বিকালে রাজধানীর কাওরানবাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।