শয়তানরা সত্যকে সব সময় প্রচন্ড ভয় পায়

 

সংবাদ জমিন, অনলাইন ডেস্ক ঃঃ
স্পেনে ছুরি-চাকু দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে যখন হাজার হাজার ষাঁড়কে হত্যা করা হয় তখন তারা বলে-এটি তো একটি খেলা । ডেনমার্কে_প্রতি বছর সাগরের মধ্যে শত শত ডলফিনকে হত্যা করা হয়, এমন কি সমুদ্রের পানি পর্যন্ত তাদের রক্তে লাল হয়ে যায়, তখন তার বলে- এটি একটি উৎসব।
ইয়াহুদীদের_একটি গোত্র প্রতি বছর হাজার হাজার মুরগিকে পাথর মেরে হত্যা করে। তাদের আক্বীদাহ্ হলো এভাবে পাথরের উপর মুরগী হত্যা করা হলে তাদের গুনাহ্ মাপ হয়ে যায়। তখন তারা বলে এটি তাদের ধর্ম ও বিশ্বাস।

খ্রিস্টানরা_নববর্ষ উদযাপনের নামে খাওয়ার জন্য হাজার হাজার ভারতীয় পাখিকে হত্যা করে। এই পাখি খাওয়াকে তারা নববর্ষের উত্তম খাবার মনে করে। নেপাল_ভারতের হিন্দুরা ডিরেক্ট গরদান থেকে শরীর বিচ্ছিন্ন করে লাখ লাখ মহিষ এবং পাঠা বলী করে প্রত্যেক বছর! এটিও তাদের ধর্মিয় উৎসর্গ হিসেবে পরিচিত । কিন্তু_মুসলমানরা যখন আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য কোনো প্রাণীকে কোরবানি করে, আর সেই পশুটিকে কোরবানির সময় ছুরিকে খুব ভালে করে ধার করে নেয়, তাকে আদর যত্ন করে খাবার খাওয়ায়, পানি পান করায়, জবাইয়ের সময় অন্য পশুদের থেকে দূরে নিয়ে কোরবানি করে, জবাইয়ের পর তার গোস্ত গরীব মুসলমানদের মাঝে বিতরণ করে… তখন অমুসলিমদের কাছে হয়ে যায় পশু হত্যার মত পাপ!!

অন্যান্য_জাতির পাশবিকভাবে পশু হত্যার সময় হলুদ মিডিয়াগুলো মুখে তালা ঝুলিয়ে রাখলেও কিন্তু মুসলমানদের এই কোরবানির সময় তারা বের হয়ে আসে। ইসলামের শত্রুদের কন্ঠে কন্ঠ মিলিয়ে তাদের উচ্ছিষ্টভোগের রাস্তা উন্মুক্ত করার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় মায়া কান্না জুড়ে দেয়। কারণ কি? ইসলাম সত্য ধর্ম। আর ডেভিলরা(শয়তানরা) সত্যকে ভয় পায় তাই। সূত্র-ফেসবুক, আব্দুল কাদের