সাটুরিয়ার টর্নেডোর ৩২ বছর পালিত হচ্ছে আজ

 

সংবাদ জমিন, অনলাইন ডেস্ক ঃঃ

১৯৮৯ সালের ২৬ এপ্রিল অর্থাৎ আজকের এই দিনে এক ভয়াল টর্নেডোর আঘাতে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া ধ্বংস লীলায় পরিণত হয়েছিল। যার আঘাতে বিলিন হয়ে যায় সাটুরিয়া উপজেলার অধিকাংশ গ্রাম।অন্তত সহস্রাধিক মানুষ মারা যায়,আহত হয় ১২ হাজার মানুষ এবং প্রায় ১ লাখ মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েন।এছাড়া উপজেলার ২০টি গ্রামের কয়েক হাজার ঘরবাড়ি, ফসলী জমি, সাটুরিয়া,হরগজ ও তিল্লী বাজারের প্রায় ৬ শতাধিক দোকানপাট, উপজেলা সরকারি খাদ্য গুদাম, বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, হাজার হাজার গাছপালা উপড়ে লন্ডভন্ড হয়ে মাটির সঙ্গে মিশে যায়।

সাটুরিয়া টর্নেডোর আজ ৩২ বছর । এত বছর পেরিয়ে গেলেও সাটুরিয়ার মানুষ আজও কাঁদে দিনটির কথা মনে করে। ২৬ এপ্রিল দিনটি সাটুরিয়ার মানুষের জন্য অত্যন্ত শোকাহত দিন । প্রতিবছর ক্যালেন্ডারের পাতায় আজকের এই তারিখটি সামনে এলেই ১৯৮৯ সালের ভয়াবহ সেই টর্নেডোর কথা নতুন করে মনে পড়ে যায় স্বজন হারা ও ক্ষতিগ্রস্ত মানুষগুলোর যার ফলে শোকাহতের মধ্য দিয়ে এই দিনটিকে টর্নেডো দিবস হিসেবে পালন করে থাকেন সাটুরিয়ার মানুষ। তখন ছিল রমজান মাস। ইফতারেরর আগে ঠিক এক মিনিটের ব্যবধানে সব কিছু গুঁড়িয়ে দিয়ে যায় এই টর্নেডো। এখনও স্বজন হারানো ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর কান্না ভেসে আসে।

সাটুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড আব্দুল মজিদ ফটো সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, এই টর্নেডোতে আমিও আহত হয়েছিলাম। আল্লাহর রহমতে বেঁচে গেছি সেইদিন। আমি মোটরসাইকেল নিয়ে সাটুরিয়ায় একটি ইফতার মাহফিলে যাচ্ছিলাম,পথিমধ্যেই এই টর্নেডোর কবলে পড়ি। মোটরসাইকেলসহ আমাকে উড়িয়ে নিয়ে যায়। প্রতি বছর মিলাদ মাহফিলে ও দোয়ার মাধ্যমে এই দিবসটি পালন করা হয়। করোনাভাইরাসের মধ্যেও স্বাস্থ্য বিধি মেনে নিহতের আত্মার শান্তির জন্য মসজিদে মসজিদে দোয়া করা হবে বলেও জানান তিনি।